NTRCA এর দুর্নীতি বজায় থাকলে কেন আপনি চাকরি পাবেননা তার কিছু তথ্য ও প্রমাণঃ 

এনটিআরসিএ

NTRCA এর দুর্নীতি বজায় থাকলে কেন আপনি চাকরি পাবেননা তার কিছু তথ্য ও প্রমাণঃ

১। ২০১৭ এ ১৬৬ মামলার হাইকোর্টের রায়ে বলা হয়েছে জাতীয় মেধা তালিকায় নিয়োগ দিতে। সেখানে কোনো কোটা থাকবেনা।

কিন্তু সরকারি চাকরিতে কোটা তুলে দেওয়া হলেও তারা মহিলা কোটা বহাল রেখেছে।
আপনি বলবেন এটা সরকারি না কিন্তু এখানে দুর্নীতি ও নানা অসঙ্গতির আভাস ছিল বলেই এই চাকরিতে কোটার বিষয়ে হাইকোর্ট নাকচ করে জাতীয়ও মেধা তালিকায় নিয়োগ দিতে বলেছে।

জাতীয় মেধা এজন্যই বলেছে যাতে সকলেই পর্যায়ক্রমে চাকরি পায়।
কিন্তু এনটি সেটাকে রায়টা কৌশলে অমান্য করে ১-১২ তম ছাঁটাইকরণের রাস্তা বের করেছে।

এনটি হাইকোর্টে পরাজিত হলেও দুর্নীতিতে পরাজিত হয়নি। তারা ৩৫ বছর সনদ প্রাপ্তদের উপর বসিয়ে নতুনদের অধিক নম্বর প্রদান করে ১-১২ তমদের সাথে প্রতিযোগিতায় নামিয়েছে। ফলত ১-১২ তম অনাসেই সনদ বাতিলের খাতায় পড়ে যাচ্ছে।

২। এনটি গত নিয়োগচক্রে শূন্যপদ ৩৯,৫৩৫ টা বললেও বাস্তবে অনলাইনে তারা ৩৮,১৪৮ শূনপদে আবেদন করার সুযোগ দিয়েছে তার পাকাপোক্ত প্রমাণ উপরের ৮ বিভাগের সকল শূন্যপদের কাগজ তুলে ধরেছি। বাকি ১৩৮৭ পোস্টের নিয়োগ কিভাবে আবেদন নেওয়া হলো!!!!!?

যদিও ২১২ শূন্যপদ তারা জটিলতা দেখিয়ে বন্ধ রেখেছে তবুও বাকিগুলো কিভাবে আবেদন নিলো অনুধাবন করুন।

৩। নিয়োগ দিতে বলেছে হবে জাতীয় মেধায় সেখানে শত শত প্রতিষ্ঠানে আবেদন তো পুরাই হাস্যকর!
এই নীতি চরম ভাবে হাইকোর্টের রায়কে আঙ্গুল দেখিয়েছে।

৪। আপনি যত উপরেই মেধা তালিকায় থাকেন সকল প্রতিষ্ঠানে আবেদন না করলে আপনার চাকরি অনিশ্চিত আর এটাকে ব্যবসা হিসেবে নেওয়ায় যতখুশি তত আবেদন সিস্টেম চালু করেছে। মেধায় উপরে থেকেও আপনি চাকরি পান বা না পান তাতে তাদের কিছুই যায় আসেনা এজন্য আবেদনের নামে জুয়ারি খেলায় নামিয়েছে।

Read more and more  দের বছরে সমাধান হয়নি ভুল চাহিদার।

জাতীয় মেধা লঙ্ঘন করে নিয়োগ দিয়েছে তার স্পষ্ট প্রমাণ আমার কাছে আছে।

৫। কোটি টাকা খরচ করে নানা ঝড় উপেক্ষা করে রিটকারীরা রায় এনেছিল। আর সেই রায় তাদের জন্য কিছুই দেবেনা এটা অন্যায়। রায় যারা এনেছে প্রথমত তাদের জন্যই হাইকোর্ট নির্দেশনা দিয়েছে ( বক্তব্য আপিল ডিভিশনের বিচারপতি)।

৬। যে কোনো চাকরির নিয়োগ সংক্রান্ত পরীক্ষার চুড়ান্ত ফলাফল পত্র- পত্রিকায় ও অনলাইন সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ হয় কিন্তু এনটি তার জালিয়াতি ঢাকতে সব কিছু এখন বন্ধ করে শুধু মাত্র ব্যক্তি পর্যায়ে চাকরির রেজাল্ট দিচ্ছে বুঝতে হবে সাগর চুরির পরিমান কেমন হতে পারে।

৭। জাতীয় মেধায় নিয়োগ হলে কোটাই যেখানে থাকার কথা নয় সেখানে মহিলা কোটা বসিয়ে পুরুষ প্রার্থীর কাছ থেকে কোটি টাকা উত্তোলন চাকরি প্রার্থীর সাথে প্রতারণা করে টাকা উত্তোলন করেছে এনটি। আরও আছে নানা অসংগতি শেষ নেই….

অথচ শিক্ষক হওয়ার আশায় টাকা দিয়ে রিটের দালাল পুষছেন আর স্বপ্ন দেখছেন চাকরি পাবেন!!!

যতক্ষন পর্যন্ত চাকরি পাওয়ার সৎ উদ্দেশ্যে নিজে সশরীরে হাইকোর্টের মামলা পরিচালনা অংশ নিচ্ছেন না ততদিন আপনার স্বপ্ন শুধুই মরিচীকা।
রিটে দালাল ধরে হাইকোর্টে এসেছেন টাকা দিয়েছেন তা খেয়ে তারাও পলায়ন।

এটা সত্য অনেকে আছে মামলা পরিচালনার লক্ষ্যে অনেক টাকা ঐ দালালগুলোকে দিয়েছে কিন্তু দালালদের কাছে তো তথ্য বা প্রমাণ কিছুই নেই এজনই মামলাতো তারা চালায় না স্যার, চাকরি কিভাবে সম্ভব?…?

আমি হাজার বার বলব রিটের দালাগুলোকে টাকা দিলে সে টাকা কোনোদিন মামলা পরিচালনায় আসবেনা ভাই। নিজে স্ব প্রনোদিত হয়ে নিজের চাকরির অধিকার ফিরে পেতে নিজেকেই এগিয়ে আসতে হবে। এই কন্টেম মামলায় ডকুমেন্টস সাবমিট সমেত জয় পাওয়া দুষ্কর আর কন্টেম জয় করতে না পারলে ৩৫+- সবাইকে সনদ নিয়ে হতাশার সাগরে ডুব দিতে হবে। লেখকঃ দোলন কুমার দে

Read more and more  ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনের লিখিত পরীক্ষার ফল প্রস্তুতের কাজ শুরু
খুব সস্তা এখনি কিনুন

Get involved!

Comments

No comments yet